Topless
বুকমার্স করতে ভুলবেন না !
Sexfarmer.Sextgem.com
♥ গর্ভাবস্হায় মিলন অনেক নর- নারী একান্তভাবে পছন্দ করে না । তার কারন হলো, গর্ভ অবস্হায় মিলনের কতগুলি যুক্তি আছে । আমরা সে বিষয়ে আলোচনা করবো ♥ ♥ গর্ভাবস্হায় মিলন কেন উচিত নয়? ♥ ♥ (ক) যাদের ধারনা, যৌনমিলন কেবল গর্ভের জন্যই, তারা অহেতুক এই মিলনের পক্ষপাতী নয় । (খ) গর্ভাবস্হায় মিলনের সময় ঠিকমত পদ্ধতি না জানলে বা ধাক্বা লাগলে গর্ভপাত হয়ে যেতে পারে । (গ) পেটে ব্যথা, মৃদু রক্তপাত প্রভৃতিও হয়ে থাকে । (ঘ) আবার কোন কোন ক্ষেত্রে ধাক্কা লেগে গর্ভপাত না হলেও নবজাতক শিশু হতে পারে বিকলাঙ্গ ।♥ ♥ গর্ভাবস্হায় মিলন সস্পর্কে যুক্ত ♥ ♥ (ক) বেশি আনন্দ নর-নারীর জীবনের প্রধান কথা । গর্ভাবস্হায় ছয়মাস পর্যন্ত এই পুর্ণ আনন্দ বিরাজ থাকে । (খ) প্রথম ছয়মাস গর্ভপাতের ভয় বিশেষ থাকে না- তখন মিলন হতে থাকে । (গ) পরবর্তী মিলনের জন্য বিশেষ আসন অবলম্বন করা উচিত । যেসব আসনে পেটে ধাক্কা খাওয়ার সম্ভবনা কম গর্ভাবস্হায় সেইসব আসনে সঙ্গম করা যেতে পারে । ছবির নিয়মে (ঘ) গর্ভ অবস্হায় মিলনে ঠিকমত আসন করলে গর্ভাস্হ সন্তান বা প্রসূতির কারও পক্ষে ক্ষতিকর হয় না । (ঙ) ছয় সাত মাস থেকে অনেক নারীর প্রচন্ড কাম ইচ্ছা জাগে । তখন মিলন না হলে মানসিক ক্ষতি হয় । যৌন সমস্যাঃ হস্তমৈথুন করার সময় যোনীর ভেতর থেকে রক্ত বের হয় কেন? এর প্রতিকার কি? কারণঃ যোনীর অভ্যন্তরীন স্থান বেশ নমনীয় এবং স্পর্শকাতর। অতিরিক্ত প্রেশার
দিয়ে হস্তমৈথুন করলে অথবা আঙ্গুলের নখ বড় থাকলে যোনীর ভেতর বিশেষ করে “সার্ভিক্স” অংশে ক্ষত সৃষ্টি হতে পারে। এরফলেই মূলতঃ হস্তমৈথুনকালে রক্ত বের হয়। অথবা এটি কোন রোগ সংক্রমিত ব্যপারও হতে পারে। সমাধানঃ হস্তমৈথুন প্রকৃয়া স্বাভাবিক এবং মশৃণ রাখতে হবে। অতিরিক্ত নখ কেটে ফেলতে হবে অথবা অতি সাবধানে মৈথুন করতে হবে। বেশি জোরে বা প্রেশার দিয়ে মৈথুন করা যাবেনা। এরপরেও রক্ত
বন্ধ না হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। বিঃ দ্রঃ হস্তমৈথুন “ভাইব্রেরটর অথবা দিলডো” দিয়ে করা উচিৎ। বেগুন, শষা, কলা ইত্যাদি দিয়ে মৈথুন করাটা অনুচিত, এক্ষেত্রে কনডম ব্যবহার করা যেতে পারে। যার সাহায্যেই মৈথুন করা হোকনা কেন সেটি যেন অবশ্যই পরিষ্কার হয়। অপরিষ্কার অঙ্গুল বা অন্য কিছুর সাহায্যে মৈথুন করলে রক্তের সাথে জীবানু মিশে তা বিপদজনক উঠতেহয়ে ‍ পারে! ♥ সেক্স টিপস , সেক্স সমস্যা ♥ ** উত্তেজিত অবস্থায় পুরুষাঙ্গের দৈর্ঘ্য কত? : ৫.৫ থেকে ৬.২ ইঞ্চি ** প্রিয়জন নিজের থেকে প্রায় ১ ফুট লম্বা এবং বেডরুমে সব সময় লাইন আপ করা যায় না । ভাল পজিশন কি হতে পারে? : পা ফাঁক করে ভাল পজিশন তৈরি করা যেতে পারে। ** পুরুষের এসটিডি টেস্ট করার ভাল পদ্ধতি কিহতে পারে? : দুজনে একসাথে এসটিডি করা। ** ওরাল করার পর বিরতিতে কি করা উচিত? : নিজের হাত চাটা এবং তার উরু এবং পেটে কিস করা যেতে পারে। ** অপ্রকাশিত অনলাইন সেক্স কি চ্যাটিং হিসাবে গণ্য হবে? : যদি সে না প্রকাশ করে তবে তার জন্য হ্যাঁ হবে। ** সেক্সের সময় যদি অরগাজম না হয় তার মানে কিবুঝতে হবে? : সে মনকষ্টে ভুগতে পারে। তাই তার মনকষ্ট লাগবে তার সাথে কথা বলা উচিত। ** প্রিয়জনের সাথে যৌন দৃশ্যের ভিডিওতে অংশ নেয়ার সময় কি মনে রাখা উচিত? : ওয়াইড শর্ট এবং শর্ট লাইটিং ব্যবহার করা দরকার। ** কনডম সাইজ কি আসলেই একটা বড় ব্যাপার? : বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সকল পুরুষের জন্য কনডম সাইজ একই হয়, তবে কমফোর্ট ফিল করার জন্যবড় সাইজ ব্যবহার করা যেতে পারে। ** সেক্স করার পর পুরুষের ঝাকুনি মারার কারণকি? : এটা অরগাজমের কারণে হয়। যৌন সমস্যাঃ হস্তমৈথুন করার পর অন্ডকোষে ব্যথা হয় কেন? কি করণীয়? কারণঃ হস্তমৈথুন করার সময় বীর্য শুধুমাত্র অন্ডকোষ (টেসটিক্যাল) থেকে আসেনা বরং সেমিনাল ভ্যাসিকাল, কাউপার্স গ্লান্ড, ভাস ডিফারেন্স, প্রোস্টেট এর সাহায্যও প্রয়োজন হয়। হস্তমৈথুন করার সময় যৌনাঙ্গে বার বার ঘর্ষণ এবং উত্তেজনার কারণে অন্ডকোয়ের প্রাসারণ ও সংকুচন হয়। অন্ডকোষের আকার পরিমানের চেয়ে বেশি হয়ে গেলে বীর্যপতের পর মূলতঃ সেখানে ব্যথার সৃষ্টি হয়। এছাড়াও প্রথম-প্রথম হস্তমৈথুন এবং অনেক দিন পর- পর করার ফলেও এই ব্যথা হতে পারে। পরবর্তীতে সাধারণতঃ হস্তমৈথুনের পর ব্যথা হয়না। ব্যথাটি ক্ষণস্থায়ী হলে চিন্তার কিছু নেই, এটি স্বাভাবিক। তবে দীর্ঘস্থায়ী, অতিরিক্ত অথবা নিয়মিত ব্যথা হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। একে অবহেলা করা মোটেই উচিত নয় কারণ ব্যথাটি অন্ডকোষে ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে! সমাধানঃ হস্তমৈথুন প্রকৃয়া স্বাভাবিক এবং মশৃণ রাখতে হবে। বেশি জোরে বা প্রেশার দিয়ে, অতিরিক্ত বা একাধিকবার মৈথুন করা এবং অত্যাধিক সময় ধরে মৈথুন করা ঠিক নয়। বিঃ দ্রঃ হস্তমৈথুন “মাস্টারবেটর, ফ্লেশলাইট, পাম্প” ইত্যাদি দিয়ে করলে ভাল হয়। যার সাহায্যেই মৈথুন করা হোকনা কেন সেটি যেন অবশ্যই পরিষ্কার হয়। SEX Tips: প্রশ্নঃ মৌখিক যৌনতা (Oral Sex) কি ? এটা কি বিকৃত যৌনতার পর্যায়ে পড়ে ? নাকি স্বাভাবিক ? উত্তরঃ মহিলার দ্বারা পুরুষের লিঙ্গ চোষন বা কোন পুরুষের জিভ দিয়ে কোন মহিলার যোনি চোষন বা লেহনকে মৌখিক যৌনতা বলা হয় । কামশাস্তবিদ বাত্সায়ন বলেছেন যে মৌখিক
যৌনতার বহিঃপ্রকাশে বিকৃত মনস্কতার কোন চাহ্নই নেই । আসলে ঘনিষ্ঠতার চুড়ান্ত আত্নচাহিদায় এই ধরনের ঘটনা পুরোমাত্রায় স্বাভাবিক মিলনের এই স্তরে উভয় সঙ্গীর কাছে পরস্পরের দেহের প্রতিটি অংশকে আক্ষরিকভাবেই গ্রাস করার এটা একটা স্বাভাবিক ইচ্ছা । যেহেতু যৌনাঙ্গগুলিই এই আনন্দের উত্স, তাই প্রত্যেকেই চায় সমবেত ঘনিষ্ঠতায়
একে চোষন বা লেহন করতে । নারীর যোনিমুখের দু'পাশে বিশেষ গ্রনথি আছে । কামোত্তেজনার সময় এই গ্রনথি থেকে এক রকম তরলরস নির্গত হয়, যা কিনা সারা যোনি- মুখকে ভিজিয়ে পিচ্ছিল করে দেয়, এর ফলে পুরুষের লিঙ্গ তার গভীরে প্রবিষ্ট করতে সুবিধে হয় । তরে বাইরে থেকে এই গ্রনথি দৃশ্যত নয়, চামড়ার আড়ালে ঢাকা থাকে । কিন্তু যোনিমুখে রস নিঃসরণ সরাসরি চোখে দেখা যায় । সব সময় এই রস নিঃসৃত হয় না । কেবল যখন প্রবল কামোত্তেজনা সূষ্টি হয়- তখনি বার্থোলিন গ্রনথি এই রস সৃষ্টি করে ।নারীর এই কামরসের মতো পুরুষের কামোত্তেজনার প্রথম অবস্হায় এক ধরনের তরল রস নিঃসরন হয় । অনেকের ভুল ধারনা আছে, সেই রসের মধ্যে শুত্রূবীজানু থাকে । আসলে তাদের সেই ধারনা ভুল । সেই রসে কোন শুত্রূবীজানু থাকে না । আবার নারীদেহের এই কামরসের সঙ্গে ডিমবোকোষের কোন সস্পর্ক নেই । তবে একে যে অন্যের সহায়ক এ কথা বলা নিস্পয়োজন । অনেকেই বলে থাকেন, রতিক্রিয়া শেষে পুরুষের মতো কি নারীর যোনি থেকেও বীর্যপাত ঘটে ? এক কথায় এর জবাব হল 'না ।' মেয়েদের কোনো বীর্যপাত হয় না । তাদের বীর্য হলো ডিমবোকোষ । তবে মানুষের মনেএ কথা জাগার কারন হলো, যৌন- মিলনের ইচ্ছা জাগলে কিংবা মিলনে প্রবৃত্ত হলে, বিশেষ করে পুরুষের লিঙ্গ সঞ্চারনের ফলে তাদের যোনিপথেযে কামরস নিঃসৃত হয়, অনেকেই ভুল করে সেই রসকেবীর্য বা শুক্র
বলে ধরে নেয় । আর এ ধরনের রস-নিঃসরন পুরুষের লিঙ্গ- নালী থেকেও বেরিয়ে থাকে । নারী- দেহে এই রস ক্ষরন রতি উত্তেজনা থাকা পর্যন্ত কমবেশী বর্তমান থাকতে দেখা যায় । ♥ যৌন সিক্রেট ♥ সেক্স সম্পর্কে জানা মানেই হচ্ছে নিজের সম্পর্কে জানা। অথচ লজ্জা বা আড়ষ্ঠতার কারণে অনেকেই সেক্স নিয়ে খুব একটা ভাল ধারণারাখেন না। ফলে ব্যক্তিগত যৌনজীবন
হয়ে পড়ে একঘেয়েমীপূর্ণ এবং বৈচিত্র্যহীন। আবার অজ্ঞতার কারণে বিভিন্ন রকম যৌন সমস্যায় পতিত হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে। এসব সমস্যা থেকে উত্তীর্ণ হতে সেক্স সিক্রেট জানাটা গুরুত্বপূর্ণ। ১) কারো শরীর দেখে কি সেক্সচুয়াল সক্ষমতা বোঝা সম্ভব? : না। ২) অনেক দূরে থাকা প্রিয়জনের সাথে ফোন সেক্স করতে চান অথচ বলতে লজ্জা পাচ্ছেন, লজ্জা ভাঙ্গাবেন কীভাবে? : প্রথমে তাকে মজার মজার এসএমএস পাঠান। দেখবেন আস্তে আস্তে ইজি হয়ে যাবেন তার সাথে। ৩) পানির নিচে কনডম কতটা কার্যকর? : তা এখনো পরীক্ষা করা হয়নি তাই বিশ্বস্ততার স্বার্থে সতর্ক হওয়া উচিত। ৪) যদি পার্টনার আপনার চেয়ে অনেক বেশি লম্বা হয় তবে শারীরিক সম্পর্ক করার ক্ষেত্রে কি করবেন। : এমন স্থান এবং আসন
নির্বাচন করা উচিত যেখানে আপনি স্পিড কন্ট্রোল করতে পারবেন। যেমন মেয়ে পার্টনার উপরে থাকা। ৫) ব্লো জব এর সময় অনেকেই দাঁত ব্যবহার করে, আপনি কতটা জানেন। : খুব কম সংখ্যক যুগলই এমনটা করে থাকে। তবে ব্লো জবের সময় এটা করতে চাইলে অবশ্যই পার্টনারকে জিজ্ঞাস করে নিবেন। ৬) প্রিয়জনের সঙ্গে যখন যৌন উত্তেজনা চরমে তখন সে আপনাকে কিছুই করতে দেয়না। এখানে কি ভুলবোঝাবুঝির অবকাশ আছে? : এটা সকলের ক্ষেত্রে হয়না । ৭) পুরুষের কমন ফ্যান্টাসি কী? : একাধিক নারীর সঙ্গে সমানতালে সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া। ৮) উত্তেজনার সময় পুরুষের বিশেষ অঙ্গ কিছুটাবেঁকে যায, এতে কি উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ আছে? : মাঝে মাঝে বেঁকে যাওয়া সাধারণ ঘটনা। তবে আঘাত জনিত কারণে ঘটলে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিত। ৯) পিরিয়ড-এর সময় রুক্ষ্ম এবং শুষ্ক অনুভূতি হওয়ার কারণ কী? : কারণ ঐ সময় গর্ভ সঞ্চার হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে। ১০) সেক্স নিয়ে ভাবলে কি মেয়েদের অরগাজম হয়? : এটা মাত্র ২ শতাংশ নারীর হয় এবং তারা অবশ্যই ভাগ্যবান। যৌন জিস্জ্ঞাসা সমাধান যৌন সমস্য...!! জিজ্ঞাসা- ১ : সেক্সকরতে পেনিস ভ্যাজাইনার কোথায় ঢোকাতে হবে? উপরে নিচে না মাঝ বরাবর? সমাধানঃ নিচ বরাবর প্রথমবারজিজ্ঞাসা- ৩ : ‍ সেক্স করার সময় কি কি সমস্যা হবে? সমাধানঃ প্রথমবার সেক্স করার সময় মেয়েটির রক্তক্ষরণ শুরু হয়। অনেকেই এতে ভয় পেয়ে যায়।ভয় পাবার কিছু নেই। যেহেতু প্রথম সেক্সের সময় সতিচ্ছেদ পর্দাটি ছিড়ে যায় (যেখানে রক্তনালী থাকে) তাই রক্তক্ষরণ একটি স্বাভাবিক বিষয়। তবেকারো রক্তক্ষরণ নাও হতেপারে, সেটাও স্বাভাবিক। :জিজ্ঞাসা- ৪ ‍ সতিচ্ছেদ পর্দা দেখেকি আমি প্রমাণ করতে পারবো কোনো মেয়ে ভার্জিন কি না? সমাধানঃ না পারবেন না। বয়স বাড়ান সাথে সাথে সতিচ্ছেদ পাতলাহয়ে আপনা আপনি ই ছিড়েযায়। তাছাড়া যেসব মেয়ে দৌড়-লাফ বা অন্যন্য কসরত বেশী করে তাদের সতিচ্ছেদ ছিড়ে যায়। কোরো সতিচ্ছেদ ছেড়া পাওয়াগেলে কোনোভাবেই এটা প্রামাণিত হবে না সে ভার্জিন নয়। বিভিন্নরকম সতিচ্ছেদের নিচেছবি দেখুন ‍- :জিজ্ঞাসা- ৫ ‍ প্রথম সেক্সে কোনো মেয়ে কি ব্যাথা পায়? সমাধানঃ বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই পায়। তবে খুব বেশী উত্তেজিত থাকলে এবং প্রচুর মিউকাস ক্ষরণ হলে ব্যাথা পায় না। সেজন্য উচিত ভালোমতোউত্তেজিত করার পর সেক্স করা। :জিজ্ঞাসা- ৬ ‍ যদি ভুল করে কারো সাথে অনিরাপদ সেক্স করে ফেলি এবং গর্ভবতী হবার আশংকা থাকে তাহলে মেয়েটি কি ফেমিকন পিল খাবে? সমাধানঃ প্রথমত, ধর্মীয় বিধান মেনে চলুন। বিয়ে বহির্ভূতসেক্সে কোনোভাবেই সমর্থন যোগ্য নয়। তবে কেউ যদি ভুল করেইবসে প্রচলিত জন্মনিরোধক পিল (ফেমিকন জাতীয়) কোনো কাজেই আসবেনা। কেননাএগুলো খেতে হয় 1 মাস আগ থেকেই। সেক্ষেত্রে 72 ঘন্টার মধ্যে “ইমার্জেন্সি পিল” খেতে হবে :জিজ্ঞাসা- ৭ ‍ ডেন্জার প্রিয়ড কি? সমাধানঃ যেসময়ে সেক্স করলে মেয়েটি গর্ভবতী হবার সম্ভাবনা বেশী তাকে ডেন্জার প্রিয়ড বলে। মিন্সট্রুয়ে শন (মাসিক) শেষ হবার 10ম দিন থেকে 20তম দিন পর্যন্ত চান্স বেশী থাকে।অন্য সময়গুলোতেও গর্ভধারণ হবেনা এটা নিশ্চিতভাবে বলা যাবে না। :জিজ্ঞাসা- ৮ ‍ মেয়েরা কি মাস্টারবেশন করে? সমাধানঃ আমেরিকান জরীপ মতে 92 ভাগ ছেলে ও 62ভাগ মেয়ে মাস্টারবেশন করে। (রেফারেন্স এখানে ) জিজ্ঞাসা- ৯ : মেয়েরা কিভাবে মাস্টারবেশন করে? সমাধানঃ ক্লাইটোরিয়াস কে নাড়াচাড়া করার মাধ্যমে অথবা ভাইব্রেটর মেশিন দিয়ে ক্লাইটোরিয়াসকে ভাইব্রেশন দেবার মাধ্যমে তারা অর্গাজম (যৌনতৃপ্তি) পেতে পারে। :জিজ্ঞাসা- ১০ ‍ সেক্স না করেও কোনো মেয়েকে কি তৃপ্তি দানকরা সম্ভব? সমাধানঃ হ্যা সম্ভব। ক্লাইটোরিয়াস এ নাড়াচাড়া করে তাদের তৃপ্তি দেয়া সম্ভব। :জিজ্ঞাসা- ১১ ‍ 18 বছরের নিচে কি সেক্স করা উচিত? সমাধানঃ না উচিত নয়। শারীরিক ভাবে যথেষ্ট সম্পূর্ণতা তাদের থাকে না। :জিজ্ঞাসা- ১২ ‍ সিফিলিস, গনোরিয়া, ধবজভংগ কি? সমাধানঃ সিফিসিল ও গনোরিয়া ব্যাকটেরিয়া ঘটিত মারাত্মক প্রাণঘাতক রোগ যাতে শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্মক ক্ষতের সৃষ্টি হয়। অনিরাপদ সেক্সের মাধ্যমে রোগের বাহক থেকে অগর সঙ্গীর কাছে এটা ট্রান্সমিট হয়। ধ্বজভংগ একটি অ্যাবনরমালিটি যেখানে রোগী উত্তেজিত হলেই বীর্জপাত ঘটে/ যৌনতৃপ্তি লাভ করে। ফলে সে সেক্স করার আগেই তৃপ্তি পেয়ে যায় এবং সেক্স করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। সমস্যা ১৩ : আমার যৌন ক্ষমতা কম। সমাধানঃ ক্ষমতা কম বলতে সাধারণত সবাই বেশীক্ষণ ইন্টারকোর্স (মিলন) করতে না পারাকেইন্ডিকেট করেন। এটা কোনো সমস্যা নয়। ইজেকশন (বীর্জশ্খলন) মানসিক প্রক্রিয়া দ্বারা প্রভাবিত হয়।উত্তেজিত অবস্থায় দ্রুত ইজেকশন হয় আবার টেনশনে বা অন্যমনস্ক থাকলে দীর্ঘ বিরতির পর ইজেকশন হয়। প্রাকটিসের মাধ্যমে রোগী নিজেই সমস্যার সমাধান করতে পারেন। সমস্যা ১৪ (ক) : আমার মাস্টারবেট (হস্তমৈথুন) করার অভ্যাস আছে। এজন্য আমার সেক্স পাওয়ার কমে যাচ্ছে। শরীর দুর্বল হচ্ছে। সমাধানঃ মাস্টারবেটকে সাধারণ ঘটনা হিসেবে মেডিকেল সাইন্সে বিবেচনা করা হয়। ক্লিনিক্যালী এর কোনো ক্ষতিকর প্রভাবপাওয়া যায়নি। বরং কিছু কিছু চিকিৎসা বিজ্ঞানী একে স্বাস্থ্যের জন্য ভালো এবং টেস্টিস ক্যানসারকে প্রতিরোধ করে বলে মত দিয়েছেন। মাস্টারবেটের সাথে সেক্স পাওয়ার কমার কোনো সম্পর্ক নেই। শারীরিক দুর্বলতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে ক্লিনিক্যালি এর কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। তবে ধর্মীয় বিবেচনায় এটা নিষিদ্ধ। :সমস্যা ১৪ (খ) ‍‍ মাস্টারবেট (হস্তমৈথুন) করার ফলেব্রণ হয়, হাতে পায়ে লোম গজায় কথাটা কি সত্য? সমাধান : পুরোপুরি ১০০ ভাগ মিথ্যা কথা। সমস্যা ১৫ : আমি ২/১ মিনিটের বেশী স্পার্ম ধরে রাখতে পারি না, আমার কি চিকিৎসার দরকার? সমাধান : না দরকার নেই। উত্তেজিত অবস্থায় ২-১মিনিটেই ইজেকশন (বীর্জশ্খলন) হতে পারে যা স্বাভাবিক অবস্থায় আরো দেরীতে হয়। মাস্টারবেশন ও সেক্সদুটো ভিন্ন জিনিষ। মাস্টারবেশনের সময় শুধু কামভাব নিবারিতহয় বলে দ্রুত বীর্যশ্খলন হয় কিন্তু সেক্স ভালোবাসার সাথে রিলেটেড। বিয়ের পর ১ম ১মাস আপনি এধরণের সমস্যায় পড়তে পারেন তবে প্রাকটিসের মাধ্যমে নিজেই তা সারিয়ে ফেলতে পারবেন। চিকিৎসার দরকার হবে না। সমস্যা ১৬ : নরমাল সেক্স টাইম কত?কতক্ষণ সেক্স করলে কোনো মেয়েকে সেটিসফেকশন দেয়া সম্ভব? সমাধান : মেয়েদের সেক্সের ধরণ ও ছেলেদের ধরণ আলাদা। ছেলেদের সেক্স বীর্জপাতের সাথে সম্পর্কিত, মেয়েদের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা মানসিক। ক্লাইটোরিয়াস নামের একটি অংশ মেয়েদের
উত্তেজনা প্রদান করে। একটি নির্দিষ্টসময় পর উত্তেজনা প্রশমিত হয় ব্যাপারটিকে অর্গাজম বলে। মেয়েদের ক্ষেত্রে টাচিং, কিসিংইত্যাদিরাবিং, ‍ প্রাথমিক ঘটনা থেকেই সেক্স শুরু হয়। উত্তেজিত থাকলে তারা ২-১ মিনিটেই সেটিসফেকশন পেতে পারে। উত্তেজনানা থাকলে ঘন্টার পর ঘন্টা তারা আনসেটিসফাই থাকতে পারে। তাদের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোনো ধরাবাধা সময় নেই। সমস্যা ১৭ : মাঝে মাঝে আমার পেনিস দিয়ে পিচ্ছিল কিছু তরল বের হয়। এটা কি সমস্যা? সমাধান : না সমস্যা নয়। বাংলায় এগুলোকে যৌনরস বলে। উত্তেজিতঅবস্থায় এটা বের হয়ে পেনিসকে পিচ্ছিল করেযাতে পেনিস সহজে ভ্যাজাইনাতে প্রবেশ করায় । ♥ যৌন সিক্রেট ♥ ১) কারো শরীর দেখে কি সেক্সচুয়াল সক্ষমতা বোঝা সম্ভব? : না। ২) অনেক দূরে থাকা প্রিয়জনের সাথে ফোন সেক্স করতে চান অথচ বলতে লজ্জা পাচ্ছেন, লজ্জা ভাঙ্গাবেন কীভাবে? : প্রথমে তাকে মজার মজার এসএমএস পাঠান। দেখবেন আস্তে আস্তে ইজি হয়ে যাবেন তার সাথে। ৩) পানির নিচে কনডম কতটা কার্যকর? : তা এখনো পরীক্ষা করা হয়নি তাই বিশ্বস্ততার স্বার্থে সতর্ক হওয়া উচিত। ৪) যদি পার্টনার আপনার চেয়ে অনেক বেশি লম্বা হয় তবে শারীরিক সম্পর্ক করার ক্ষেত্রে কি করবেন। : এমন স্থান এবং আসন
নির্বাচন করা উচিত যেখানে আপনি স্পিড কন্ট্রোল করতে পারবেন। যেমন মেয়ে পার্টনার উপরে থাকা। ৫) ব্লো জব এর সময় অনেকেই দাঁত ব্যবহার করে, আপনি কতটা জানেন। : খুব কম সংখ্যক যুগলই এমনটা করে থাকে। তবে ব্লো জবের সময় এটা করতে চাইলে অবশ্যই পার্টনারকে জিজ্ঞাস করে নিবেন। ৬) প্রিয়জনের সঙ্গে যখন যৌন উত্তেজনা চরমে তখন সে আপনাকে কিছুই করতে দেয়না। এখানে কি ভুলবোঝাবুঝির অবকাশ আছে? : এটা সকলের ক্ষেত্রে হয়না । ৭) পুরুষের কমন ফ্যান্টাসি কী? : একাধিক নারীর সঙ্গে সমানতালে সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া। ৮) উত্তেজনার সময় পুরুষের বিশেষ অঙ্গ কিছুটাবেঁকে যায, এতে কি উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ আছে? : মাঝে মাঝে বেঁকে যাওয়া সাধারণ ঘটনা। তবে আঘাত জনিত কারণে ঘটলে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া উচিত। ৯) পিরিয়ড-এর সময় রুক্ষ্ম এবং শুষ্ক অনুভূতি হওয়ার কারণ কী? : কারণ ঐ সময় গর্ভ সঞ্চার হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে। ১০) সেক্স নিয়ে ভাবলে কি মেয়েদের অরগাজম হয়? : এটা মাত্র ২ শতাংশ নারীর হয় এবং তারা অবশ্যই ভাগ্যবান।

ENTER HOME